fbpx

ব্লাডি মেরি আয়নার প্রেতাত্মা

ব্লাডি মেরি (Bloody Mary) হচ্ছে এমন একটা প্রচলিত লোকপ্রিয় প্রেতাত্মা, যাকে নিয়ে আলোড়নের শুরুটা হয় ২০ শতকের দিকে। বলা হয়ে থাকে, এই প্রেতাত্মাকে দেখার জন্য অন্ধকারে অথবা মোমবাতির আলোতে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে ৩ বার Bloody Mary উচ্চারণ করলেই সে চলে আসে। অনেকের সামনে শান্তভাবে নিজেকে উপস্থাপন করে, আবার অনেকের কাছে অমঙ্গলকারী হিসাবে আসে।

ব্লাডি মেরির প্রচলিত রেওয়াজ

২০ শতকের দিকে প্রচলিত রেওয়াজ ছিল যে একটি অন্ধকার বাড়িতে কোন কুমারী মেয়ে মোমবাতি নিয়ে আয়নার দিকে কিছুক্ষণ তাকিয়ে থাকলে যদি কোনো পুরুষকে দেখেন, তারমানে তার বিয়ে সামনে। আর যদি মৃত্যু বা Grim Reaper দেখেন, তবে বিয়ের পুর্বেই তার মৃত্যু হবে।

বর্তমানে অবশ্য ব্লাডি মেরির প্রচলিত কাহিনী একটাই যে, এই আয়নাভুতকে মোমবাতির আলোয় অন্ধকার বাড়িতে আয়নার সামনে ৩বার নাম ধরে ডাকলে সে চলে আসে। এরপর হয় অভিশাপ দিয়ে চলে যাবে, নাহলে চোখ থেকে রক্ত পড়তে পরতে মেরে ফেলবে বা আঁচড়ে কামড়ে রেখে যাবে আহ্বানকারীকে। এই প্রেতাত্মা দেখতে সাধারণত রক্ত দিয়ে মাখা থাকে বা কিছুদিন আগের দাফন করা কোনো লাশের মত হয়ে থাকে।

আসল ব্লাডি মেরি

ইতিহাসে যাকে নিয়ে এত কল্পকাহিনী প্রচলিত, বাস্তবে সেই ব্লাডি মেরি ছিলেন QUEEN MARY (I)। তিনি ধর্ম বিকৃত করে নিজের খুশিমতন জীবনযাপন করতেন। অসংখ্যবার তিনি অবৈধ গর্ভপাত করান এবং সর্বাধিকবার প্রেগন্যান্ট হবার গল্পটাও তার।

তার এই অযাচিত জীবনযাপনের জন্য তাকে ব্লাডি মেরি খেতাবটি দেয়া হয়। শাসন ব্যবস্থাতেও তিনি ছিলেন অত্যন্ত খারাপ একজন শাসক।

ব্লাডি মেরি

মূলত ব্লাডি মেরি কি?

ব্লাডি মেরি নিয়ে যা কিছু প্রচলিত আছে, তার সবটাই কল্পকাহিনী। সাইকোলজিস্ট এবং সায়েন্টিস্টরা গবেষণা করে দেখেছেন যে, মৃদু আলো বা মোমবাতির আলোতে আমাদের মস্তিষ্কে একধরনের ইল্যুশনের সৃষ্টি হয়। আর এই ইল্যুশনের কারণে আয়নায় আমরা অনেক ধরনের চিত্র দেখি। আর এক ভাবে আয়নায় তাকিয়ে থাকলে যেটা হয়, তা হচ্ছে আপনি নিজের কল্পনাতেই একটি ভয়ংকর কিছু দেখতে চাইবেন আর সেটাই আপনি দেখবেন।

কিন্তু কেউ সুনিশ্চিত ভাবে যে ব্লাডি মেরিকেই দেখেছে, এমন প্রমাণ আজও পাওয়া যায়নি। বরং দেখা গিয়েছে, প্রাণী সদৃশ্য কিছুর ছায়া অথবা নিজের অবয়বের ছায়া এসব দেখেই মানুষ ভয় পেয়েছে। আর এই আয়নায় তাকিয়ে মৃত্যুর ব্যাখ্যা সায়েন্টিস্টরা বলেছেন, হার্ট অ্যাটাকে বা অতিরিক্ত ভয়ে শ্বাসরোধ হয়েই এরা আসলে মারা গেছেন।

বাংলাদেশে ব্লাডি মেরির প্রচলন

অবাক হচ্ছেন? না অবাক হবার কিছু নেই। আমাদের বাংলাদেশেও ব্লাডি মেরির প্রচলন রয়েছে। ব্লাডি মেরি বলা ভুল হবে, আসলে চলা উচিত আমাদের দেশ আয়না ভূতের প্রচলন রয়েছে। এই আয়না ভূতের প্রচলিত কাহিনী হচ্ছে, মাঝরাতে অন্ধকারে আয়নার দিকে তাকালে যদি নিজের ছবি বাদে অন্য কাউকে দেখে, সেটা আয়না ভুত বা জ্বিন। আর এই জ্বিন অবশ্যই বিশাল কোন ক্ষতি করবে, অথবা মেরে ফেলবে। আর তাই গ্রামাঞ্চলে আয়নাতে পর্দা ব্যবহার করা হয়, যাতে করে রাতে ঘুম ভাঙলে আয়নায় তাকালেও কিছু না দেখা যায় !

Leave a Reply