ফ্রম হলিউড টু বাংলাদেশ ভায়া ইন্ডিয়া (পার্ট ১)

হলিউড টু বাংলাদেশ

এক শ্রেণীর মানুষ আছেন, যারা বাংলাদেশি সিনেমার নাম শুনলেই এই বলে নাক সিটকান যে, “বাংলাদেশের সিনেমা দেখার কি আছে? এরা তো শুধু পারে ইন্ডিয়ান ছবি নকল করতে”। একজন বাংলাদেশি সিনেমাপ্রেমী হিসেবে অস্বীকার করবো না যে, আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি প্রায় সূচনালগ্ন থেকেই ভারতের বিভিন্ন ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সিনেমা রিমেক বা অনুকরণ করে আসছে। এমনকি এখনও বছরের মোট সিনেমার প্রায় এক-তৃতীয়াংশ হয় ভারতীয় সিনেমার নকল।

তবে কথা হলো, আমরা যাদের কাছ থেকে “আম চুরি” করে নিয়ে আসছি, সেই আমের সবগুলো গাছের মালিক কি তারাই? নাকি তারা নিজেরাও অনেক আমের গাছ অন্য জায়গা (হলিউড) থেকে চুরি করে নিয়ে এসে নিজেদের গাছ বলে চালিয়ে দিচ্ছে? আসুন জেনে নেই এমন কিছু বাংলাদেশি সিনেমা সম্পর্কে, যেগুলো আমরা ভারত থেকে নকল করেছি, এবং আমাদের আগে ভারত সেগুলো হলিউড থেকে নকল করেছে।

From Hollywood to Bangladesh via India !

১. স্বজন (১৯৯১) : একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী কবি (ইলিয়াস কাঞ্চন), তার এক নারী ভক্ত (মৌসুমি) ও এক ফুর্তিবাজ বন্ধুর (রুবেল) ত্রিমুখী প্রেমের গল্প নিয়ে সোহানুর রহমান সোহান ১৯৯১ সালে নির্মাণ করেন রোমান্টিক ড্রামা মুভি “স্বজন”। পুরো সিনেমা ও সবগুলো গান লরেন্স ডি’সুজা পরিচালিত; সঞ্জয় দত্ত, মাধুরী দীক্ষিত ও সালমান খান অভিনিত ১৯৯১ এর ব্লকবাস্টার হিন্দি মুভি Saajan এর অফিসিয়াল রিমেক। মজার ব্যাপার হচ্ছে এই Saajan মুভিটিও জীন-পল র্যা পিন্যু পরিচালিত; গিয়ার্ড ডিপ্র্যাডিউ, ভিনসেন্ট পেরেয ও এনি ব্রকেট অভিনিত ১৯৯০ এর ফরাসী মুভি Cyrano de Bergeerac এর আদলে নির্মিত। উল্লেখ্য যে, Cyrano de Bergeerac মুভিটিও একই নামের এক লেখকের জীবনী ও এডমন্ড রোস্ট্যান্ডের নাটিকা অবলম্বনে নির্মিত। এমনকি এই একই থিমে এর আগেও বেশ কয়েকটি সিনেমা ও মঞ্চনাটক নির্মিত হয়েছে।

২. এক মুঠো ভাত (১৯৭৮) : ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামির (জাফর ইকবাল) পলায়ন, ছদ্মবেশ, জীবনযুদ্ধ ও প্রেমের (ববিতা) গল্প নিয়ে ইবনে মিজান ১৯৭৮ সালে নির্মাণ করেন ক্রাইম এ্যাকশন মুভি “এক মুঠো ভাত”। ছবিটি মনমোহন দেসাই পরিচালিত রাজেশ খান্না ও মমতাজ অভিনিত ১৯৭৪ এর সুপারহিট হিন্দি মুভি Roti এর নকল। এই Roti সিনেমাটিও কিন্তু পল উয়েন্ডক্স পরিচালিত, ফ্রেড ম্যাকমুরে ও ডরোথি গ্রীন অভিনিত ১৯৫৯ এর আমেরিকান মুভি Face of a Fugitive এর আদলে নির্মিত। যা আবার জোনাথান এইচ গ্লিডেনের ছোট গল্প “Long Gone” অবলম্বনে নির্মিত।

৩. বাপ বেটার লড়াই (২০০৪) : একজন অর্থের পেছনে ছুটে চলা শিল্পপতি বাবা (নায়করাজ) ও তার স্নেহবঞ্চিত একমাত্র মাতাল সন্তানের (মান্নার) দ্বন্দ্বের গল্প নিয়ে এফ.আই মানিক ২০০৪ সালে নির্মাণ করেন সোশ্যাল ড্রামা মুভি “বাপ বেটার লড়াই”। ছবিটি প্রকাশ মেহরা পরিচালিত, প্রাণ ও অমিতাভ বচ্চন অভিনিত ১৯৮৪ এর ব্লকবাস্টার হিন্দি সিনেমা Sharaabi এর অনুকরণে নির্মিত। এই Sharaabi সিনেমাটিও স্টিভ গর্ডন পরিচালিত, ডাডলি মুর ও লিজা মিন্নেল্লি অভিনিত ১৯৮১ এর আমেরিকান মুভি Arthur এর আদলে নির্মিত। যা ভারতে আরো দুইবার রিমেক করা হয়েছিল।

৪. বাবা আমার বাবা (২০০৮) : এক ধনী লোকের ছোট্ট মেয়ের (দীঘির) জন্য নিয়োজিত দেহরক্ষীর (ইলিয়াস কাঞ্চনের) সংগ্রাম ও আবেগের গল্প নিয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন ২০০৮ সালে নির্মাণ করেন ক্রাইম থ্রিলার মুভি “বাবা আমার বাবা”। ছবিটি অপূর্ব লাখিয়া পরিচালিত অমিতাভ বচ্চন ও রুচা বৈদ্য অভিনিত ২০০৫ এর হিন্দি সিনেমা Ek Ajnabee এর অনুকরণে নির্মিত। এই Ek Ajnabee ছবিটি আবার টনি স্কট পরিচালিত; ডেঞ্জেল ওয়াশিংটন ও ড্যাকোটা ফ্যানিং অভিনিত ২০০৪ এর ব্রিটিশ-আমেরিকান মুভি Man on Fire এর আদলে নির্মিত। যেটা কিনা আবার এ.জে. কুইনিল রচিত একই নামের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত। উল্লেখ্য, একই গল্পে ২০০৭ সালে পরিচালক কাজী হায়াৎ তার ছেলে কাজী মারুফ কে নিয়ে “ক্যাপ্টেন মারুফ” নামে একটি সিনেমা নির্মাণ করেন।

৫. নিশান (১৯৭৭) : প্রাসাদ ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে জন্মের পরপরই পৃথক হয়ে সম্পূর্ণ ভিন্ন পরিবেশে বেড়ে উঠা জমজ রাজপুত্রের (জাবেদ) সংগ্রামের গল্প নিয়ে ইবনে মিজান ১৯৭৭ সালে নির্মাণ করেন সোয়াশবাকলার (এক ধরণের একশন) মুভি “নিশান”। ছবিটি নরেশ কুমার পরিচালিত ও রাজেন্দ্র কুমার অভিনিত ১৯৭২ এর হিন্দি সিনেমা Gora Aur Kala এর অনুকরণে নির্মিত। যা আবার পালানিয়ান্দি নীলাকান্টান পরিচালিত ও মারুদুর গোপালান রামচন্দ্রন অভিনিত ১৯৭১ এর তামিল মুভি Neerum Neruppum এর রিমেক। সেটা আবার সুব্রামানিয়াম শ্রীনিবসন পরিচালিত ও রঞ্জন অভিনিত ১৯৪৯ এর হিন্দি মুভি Nishan এর রিমেক। আর এই Nishan মুভিটিও আবার গ্রেগরি র্যা টফ পরিচালিত ও ডগলাস ফেয়ারব্যাংক্স অভিনিত ১৯৪১ এর আমেরিকান মুভি The Corsican Brothers এর অনুকরণে নির্মিত। যেটা কিনা আবার ফরাসি লেখক অ্যালেক্সান্ডার ডুমার এর একই নামের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত।

৬. ধোঁকা (২০০৭) : সাময়িক স্মৃতিভ্রংশ রোগে আক্রান্ত এক ধনী ব্যবসায়ীর (মান্না) প্রিয়তমা (পূর্ণিমা) হারানোর প্রতিশোধের গল্প নিয়ে পরিচালক যুগল শাহিন সুমন ২০০৭ সালে নির্মাণ করেন নিও-নোয়র (ক্রাইম) সাইকলজিক্যাল থ্রিলার মুভি “ধোঁকা”। ছবিটি অরুণাসালাম মুরুগাদস পরিচালিত; সুরিয়া ও অসিন অভিনিত ২০০৫ এর তামিল মুভি Ghajini এর অনুকরণে নির্মিত। Ghajini ছবিটি আবার ক্রিস্টোফার নোলান পরিচালিত; গাই পিয়ার্স ও ক্যারি-এনি মস অভিনীত ২০০০ এর আমেরিকান মুভি Memento এর আদলে নির্মিত। তবে Ghajini এর কমেডি ও রোমান্টিক কিছু দৃশ্য Happy Go Lovely (1951) এবং Amélie (2001) হতে কপি করা।

৭. আমাদের সন্তান (২০০৪) : অর্থলোভী স্বার্থপর সন্তানদের কারনে শেষ বয়সে আলাদা হয়ে যাওয়া বাবা-মায়ের (নায়করাজ ও কবরী) হৃদয়ছোঁয়া গল্প নিয়ে ইস্পাহানী আরিফ জাহান ২০০৪ সালে নির্মাণ করেন ফ্যামিলি ড্রামা মুভি “আমাদের সন্তান”। ছবিটি রবি চোপড়া পরিচালিত; অমিতাভ বচ্চন ও হেমা মালিনী অভিনিত ২০০৩ এর হিন্দি সিনেমা Baghban এর আদলে নির্মিত। এই Baghban ছবিটি আবার লিও ম্যাকক্যারি পরিচালিত; ভিক্টর মূর ও বেউলাহ বন্ডি অভিনিত ১৯৩৭ এর আমেরিকান মুভি Make Way For Tomorrow এর আদলে নির্মিত। যা কিনা আবার একটি নাটক থেকে এবং সেই নাটকটি জোসেফিন লরেন্স রচিত The Years Are So Long উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত।

৮. পালাবি কোথায় (১৯৯৬) : একই অফিসে কর্মরত তিন নারীর (শাবানা, সুবর্ণা মুস্তাফা ও চম্পা) উপর লম্পট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা (হুমায়ুন ফরিদী) কর্তৃক যৌন হয়রানি ও এর প্রতিরোধের গল্প নিয়ে শহীদুল ইসলাম খোকন ১৯৯৬ সালে নির্মাণ করেন সোশ্যাল কমেডি মুভি “পালাবি কোথায়”। ছবিটি সিঙ্গীতাম শ্রীনিবাস রাও পরিচালিত; উর্বশী, রোহিণী, রেভাথি ও নাসসার অভিনিত ১৯৯৪ এর তামিল মুভি Magalir Mattum এর অনুকরণে নির্মিত। যা কিনা আবার কলিন হিগিন্স পরিচালিত; জেইন ফন্ডা, লিলি টমলিন, ডলি পার্টন ও ড্যাবনি কোলম্যান অভিনীত ১৯৮০ এর আমেরিকান মুভি 9 to 5 এর অনুকরণে নির্মিত।

৯. লোভে পাপ পাপে মৃত্যু (২০১৪) : একজন ব্যবসায়ীর (রিয়াজ) অর্থ আত্মসাতের জন্য তার স্ত্রী (পূর্ণিমা) ও প্রেমিকের (আমিন খান) ষড়যন্ত্রের গল্প নিয়ে সোহানুর রহমান সোহান ২০১৪ সালে নির্মাণ করেন রোমান্টিক থ্রিলার মুভি “লোভে পাপ পাপে মৃত্যু”। এই সিনেমাটি আব্বাস-মাস্তান পরিচালিত; ববি দেওল, আমিশা প্যাটেল ও অক্ষয় খান্না অভিনিত ২০০২ এর হিন্দি সিনেমা Humraaz এর আদলে নির্মাণ করা হয়েছে। এদিকে Humraaz সিনেমাটিও এন্ড্রু ড্যাভিস পরিচালিত; মাইকেল ডগলাস, গ্বীনেথ প্যাল্ট্রো ও ভিজ্ঞো মর্টেন্সান অভিনিত ১৯৯৮ এর আমেরিকান মুভি A Perferct Murder এর অনুকরণে নির্মিত। যা কিনা আবার আলফ্রেড হিচককের কাল্ট ক্লাসিক Dial M For Murder এর মডার্ন রিমেক।

১০. সাগরিকা (১৯৯৮) : একজন নিষ্ঠুর স্বামী (হেলাল খান), তার স্ত্রী (ঋতুপর্ণা) ও তার প্রেমিক (আমিন খানের) ত্রিমুখী প্রেমের দ্বন্দ্বের গল্প নিয়ে বাদল খন্দকার ১৯৯৮ সালে নির্মাণ করেন রোমান্টিক থ্রিলার মুভি “সাগরিকা”। সিনেমাটি আব্বাস-মাস্তান পরিচালিত; আরবাজ খান, জুহি চাওলা ও ঋষি কাপুর অভিনিত ১৯৯৬ এর হিন্দি সিনেমা Daraar এর অনুকরণে নির্মিত। এই Daraar সিনেমাটি আবার জোসেফ রুবেন পরিচালিত; প্যাট্রিক বার্গিন, কেভিন আন্ডারসন ও জুলিয়া রবার্টস অভিনিত ১৯৯১ এর আমেরিকান মুভি Sleeping With The Enemy এর অনুকরণে নির্মিত। উল্লেখ্য যে, Sleeping With The Enemy মুভির থিমে ১৯৯৮ তে মোহাম্মদ হোসেনের “রাঙা বউ” ছাড়াও সারা বিশ্বে মোট ১৩টি সিনেমা নির্মিত হয়েছে।

এই বিশ্বায়নের যুগে সিনেমা রিমেক বা কপি করা আহামরি কোন ব্যাপার না। তবে আমাদের পরিচালকদের অবশ্যই প্রথমে মৌলিক গল্পের উপর গুরুত্ব দেওয়া উচিৎ। আর যদি রিমেক করতেই হয়, তবে অন্ধের মত অনুকরণ না করে; নিজেদের মেধা ও সংস্কৃতির মেলবন্ধন ঘটিয়ে করা উচিৎ।

(চলবে)

Comments

comments

SHARE