সিগারেট নিষিদ্ধ যে দেশগুলোয় !

সিগারেট নিষিদ্ধ

বিশ্বের অনেক দেশেই পাবলিক প্লেস এবং সরকারী-বেসরকারী জোনগুলোয় কমবেশ সিগারেট নিষিদ্ধ করা হয়। আবার অনেক দেশ আছে, যেখানে সিগারেটের উপর কোনো নিষেধাজ্ঞাই নেই। কিন্তু তাই বলে একেবারেই নিষিদ্ধ?

হ্যাঁ, সিগারেট খাওয়া সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ, এমন ৫টি দেশের কথাই আজকে আমরা বলবো। চলুন জেনে নেয়া যাক সিগারেট নিষিদ্ধ করা ৫টি দেশের কথা !

ভুটান : ২০০৪ সালে বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে ভুটানে সিগারেট ও তামাক জাতীয় দ্রব্য বিক্রয় করা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ হয়ে যায়। ২০১০ সালের মধ্যে দেশটি বিশ্বের সবচেয়ে তামাকমুক্ত পরিচ্ছন্ন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পায়। কিছু অসাধু ব্যক্তি, যারা গোপনে তামাক বিক্রয় চালিয়ে যাচ্ছিলো, তাদেরকেও তিন থেকে পাঁচবছর মেয়াদী কারাদণ্ডের সাজা দেয়া হয়। বর্তমানে ভুটান বিশ্বের একমাত্র তামাকমুক্ত দেশ।

তুর্কমেনিস্তান: সেন্ট্রাল এশিয়ার একটি দেশ তুর্কমেনিস্তান। দেশটির প্রেসিডেন্ট সিগারেট খেতে খেতে নিদারুণভাবে অসুস্থ হয়ে যাবার পর দেশটির প্রশাসনের টনক নড়ে। আইন করে সিগারেট নিষিদ্ধ করে দেয়া হয়। সব সিগারেট ও তামাকের কারখানা বন্ধ হয়ে যায়। এবং বাইরের দেশ থেকেও সিগারেট আমদানী নিষিদ্ধ করা হয়। এরপর থেকে আর ওই দেশটিতে কখনো কাউকে সিগারেট খেতে দেখা যায়নি।

কোস্টারিকা : ২০১২ সালে কোস্টারিকা দেশটি বিশ্বের দ্বিতীয় সিগারেট নিষিদ্ধকারী দেশ হিসেবে আলোচনায় আসে। এসময় সেখানে টেক্সি ক্যাব, বার, অফিস, ক্যাসিনো সহ প্রায় সব জায়গায়ই সিগারেট ধরানোর উপর নিষেধাজ্ঞা বসিয়ে দেয়া হয়। কেবলমাত্র ঘরে বসেই সিগারেট খাওয়া যেত। কিন্তু সেই সিগারেটটা আসবে কোথেকে? কারণ কোনো দোকানেই সিগারেট বিক্রয়ের অনুমতি দেয়া হচ্ছিলো না। মোটকথা, জনগণকে চাপের উপর রেখে সিগারেট পুরোপুরিভাবে নিষিদ্ধ করে দেয়া হয়েছিলো।

কলোম্বিয়া : কলোম্বিয়ায় আগে থেকেই প্রকাশ্যে ধুমপান নিষিদ্ধ ছিলো। তবে ২০০৯ সালে সমস্ত পাবলিক প্লেস, কলকারখানা, অফিস আদালত সহ সবরকমের ইনডোর ওয়ার্কপ্লেসগুলোয় সিগারেট নিষিদ্ধ করে দেয়া হয়। এমনকি সিগারেটের প্যাকেটে কোনো প্রকার “Light” বা “Mild” লেখার উপরেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। যাতে মানুষ কোনো সিগারেটকেই হালকা বা কম ক্ষতিকর না ভাবে।

উরুগুয়ে : ল্যাটিন অ্যামেরিকান কান্ট্রি হিসেবে উরুগুয়েতেই প্রথম সিগারেট নিষিদ্ধ করা হয়। দেশটির আইন অনুসারে, ঘরে সন্তান থাকলে তার পিতা সিগারেট খেতে পারবেন না। পাবলিক প্লেস এবং ‍গাড়িতে বসেও সিগারেট খাওয়া যাবেনা।

মালয়েশিয়া : বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ইলিগ্যাল সিগারেট বিক্রয় হয় মালয়েশিয়ায়। এ দেশটিতে প্রকাশ্যে সিগারেট খাওয়‍া সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। জুন ২০১০ থেকে, প্রাইভেট অফিসে কোনো ব্যক্তি যদি এয়ার কন্ডিশনারের মধ্যে সিগারেট খান, তাহলে তাকে ১০ হাজার মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত অন্যথায় দুই বছরের কারাদণ্ডের সাজা দেয়ার আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। যদিও দেশটির অসৎ পুলিশর‍া খুব অল্পটা টাকার বিনিময়েই তামাক বিক্রেতা ও ধুমপায়ীদের সাথে এসব বিষয়ে ডিল করে ঝামেলা মিটিয়ে নেন। তাই দেশটি এখনো পুরোপুরিভাবে ধুমপানমুক্ত হতে ‍পারেনি।

এছাড়াও বিশ্বের আরো বেশ ৩০-৩৫টি দেশে প্রকাশ্যে সিগারেট খাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। একদা আমাদের বাংলাদেশেও সিগারেট খাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছিলো। বোকা বাঙ্গালী সে আইন মেনে নেয়নি। তবে যাই হোক, সুন্দর এই উদ্যোগটি নিয়ে উপরের এই কয়টি দেশই মোটামুটিভাবে সফল !

আরো পড়ুনঃ

Comments

comments

SHARE