নরওয়ে : মধ্যরাতে সূর্য উঠে যে দেশে

নরওয়ে মধ্যরাতে সূর্য

মধ্যরাতের সূর্যের দেশ বা নিশীত সূর্যের দেশ হিসেবেই সর্বাধিক পরিচিত নরওয়ে ! মধ্যরাতেও এই দেশটিতে সূর্যের দেখা মেলে। সূর্য তাও আবার মধ্যরাতে ! অনেকের মনে প্রশ্ন উঠতে পারে যে আকাশে সূর্য রয়েছে তাহলে দিন না হয়ে রাত কেন? অথবা রাতের বেলা আকাশে সূর্যই বা দেখা যাবে কি করে? মধ্যরাতের সূর্য হচ্ছে এমন একটা ঘটনা যখন টানা ২৪ ঘন্টাই সূর্য দিগন্ত রেখার উপরে থাকে এবং ঐ সকল অঞ্চল সমূহ ২৪ ঘন্টা ই সূর্যের আলো পেয়ে থাকে। আবার একই ভাবে সূর্য যখন দিগন্ত রেখার নিচে অবস্থান করে তখন ঐ অঞ্চল সমূহে ২৪ ঘন্টাই রাতের অন্ধকার থাকে। চলুন তাহলে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক এই বিষয়ে…

নরওয়ে : নিশীত সূর্যের দেশ

পৃথিবীর উত্তর গোলার্ধে অবস্থিত নরওয়ের প্রাকৃতিক ঘটনাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, বছরের একটি নির্দিষ্ট সময় ২৪ ঘন্টা ব্যাপী সূর্যের আলো বিদ্যমান থাকা। প্রতি বছর গ্রীষ্মকালে নরওয়ের কিছু অঞ্চলে ২ থেকে ৪ মাস পর্যন্ত একটানা সূর্যের আলো বিদ্যমান থাকে এবং রাতের অন্ধকারের পরিবর্তে আকাশে গোধূলির আলো ফুটে থাকে। নরওয়ে ছাড়াও উত্তর গোলার্ধে অবস্থিত কয়েকটি দেশ, যেমন – সুইডেন, ফিনল্যান্ড এবং আইসল্যান্ডেও একই ঘটনা দেখতে পাওয়া যায়। কিন্তু নরওয়েরই বেশিরভাগ অঞ্চল উত্তর গোলার্ধের মধ্যে অবস্থিত এবং সূর্যের আলো সবচেয়ে বেশি সময় ধরে পাওয়া যায়। আর এই কারণেই নরওয়ে মধ্যরাতের সূর্যের দেশ হিসেবে পরিচিত।

মধ্যরাতের সূর্য, নরওয়ে
মধ্যরাতের সূর্য, নরওয়ে

২৪ ঘন্টা সূর্যের আলো থাকার কারণ হচ্ছে নরওয়ের ভৌগোলিক অবস্থান। ভৌগোলিকভাবে উত্তর গোলার্ধে যখন গ্রীষ্মকাল তখন সুমেরু বৃত্ত থেকে যত উত্তরে বা উপরের দিকে যাওয়া যায় ততই সূর্যের আলো বেশি সময় ধরে পাওয়া যায়। উত্তর গোলার্ধের সর্বোচ্চ স্থান বা সর্ব উত্তরে মার্চ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৬ মাস সূর্য আলো দেয় এবং তার পর ৬ মাস অন্ধুকারাচ্ছন্ন থাকে। অর্থাৎ এই ৬ মাস উত্তর গোলার্ধে শীতকাল থাকে। নরওয়ের সালবার্ড (Svalbard) দ্বীপপুঞ্জ উত্তর গোলার্ধের জনসংখ্যা অধ্যুষিত সর্ব উত্তরের স্থান। এই অঞ্চলে ১৯ শে এপ্রিল থেকে ২৩ শে আগষ্ট পর্যন্ত একটানা প্রায় ৪ মাস সূর্য আলো দেয়। এছাড়াও অঞ্চল ভেদে বিভিন্ন স্থানে ২-৩ মাস পর্যন্ত একই ঘটনা দেখতে পাওয়া যায়। তবে মধ্যরাতের সূর্য সবচেয়ে ভালো দেখা যায় ২১ জুন।

প্রাকৃতিক এই ঘটনাটিকে হোয়াইট নাইট বা শ্বেতরাত্রি বলেও উল্লেখ করা হয়। কারণ এই সময় স্বাভাবিক নিয়মে সূর্য উঠলেও তা অস্ত না গিয়ে দিগন্ত রেখার উপরে অবস্থান করে এবং রাতের বেলাও আকাশকে মৃদু আলোয় উদ্ভাসিত রাখে।

নরওয়ে সম্পর্কে আরো কিছু মজার তথ্য

  • পৃথিবীতে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে লম্বা দাড়ির রেকর্ড রয়েছে নরওয়ের হ্যান্স লংসেথ নামে এক ব্যক্তির। মৃত্যুর সময় তার দাড়ি ছিল ৫.৩৩ মিটার লম্বা।
  • আইন অনুসারে কোনো গৃহপালিত পশুর স্পে করানো যাবে না নরওয়েতে। অর্থাৎ কোনো জীবজন্তুর জন্মনিয়ন্ত্রণ করা যাবে না !
  • পৃথিবীর প্রথম দেশ হিসেবে সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দিয়েছে এফএম রেডিও।
  • নরওয়ের আটলান্টিক ওশেন পৃথিবীর সবচেয়ে বিপজ্জনক রাস্তাগুলোর একটা।
  • নরওয়ের জনগনের এত বেশি পরিমান অর্থ রয়েছে যে, তারা তা নিয়ে বিব্রত !
  • টানা কয়েক দশক যাবত পৃথিবীর সবচেয়ে সুখি দেশের তালিকার প্রথমদিকে অবস্থান করছে নরওয়ে!
  • পৃথীবিতে সবচেয়ে বেশী তেল ও গ্যাসের খনি রয়েছে নরওয়েতে।
  • নরওয়েতে ইসলাম দ্বীতিয় প্রধান ধর্ম। ৫৫ লাখের মধ্যে ২ লাখ মানুষ ইসলাম ধর্ম অনুসারী যা ১৯৯০ সালে ছিল মাত্র ৩ হাজার!

আরো পড়ুনঃ

SHARE