গোলরক্ষক কথন

গোলরক্ষক

ফুটবলে গোলরক্ষক বলতে এমন একটি খেলোয়াড়ী অবস্থান বোঝানো হয় যেটি প্রতিপক্ষের আক্রমণের বিরুদ্ধে সর্বশেষ ধাপের প্রতিরক্ষা হিসেবে কাজ করে এবং নিজেদের গোলপোস্ট সুরক্ষিত রাখে। গোলরক্ষকের ইংরেজিতে সংক্ষিপ্ত রূপ GK যা লাইন আপ কার্ড, ম্যাচ বিবরনী এবং টেলিভিশনে ব্যবহৃত হয়। এছাড়া কিপার এবং গোলি শব্দটিও ব্যবহৃত হয়।

গোলরক্ষকের মূল কাজ হচ্ছে নিজেদের দলের গোল সুরক্ষিত রাখা এবং বিপক্ষ দলকে গোলদানে বিধিসম্মত বাধা দেয়া। একমাত্র দলে গোলরক্ষকেরই খেলার মধ্যে নির্দিষ্ট সীমার ভেতর অর্থাৎ ডি বক্সের ভিতর বলকে হাত দিয়ে ধরার বৈধ অধিকার রয়েছে। প্রতিটি দলে কেবলমাত্র একজন গোলরক্ষক দায়িত্ব পালন করেন। সাধারণত যখন দলে খেলোয়াড়দের নম্বর দেয়া হয় তখন মূল গোলরক্ষককে ১ নং জার্সি প্রদান করা হয়। তাছাড়া স্কোয়াডে একাধিক  গোলরক্ষক থাকলে জার্সি নং ভিন্ন হতে পারে। তবে সেক্ষেত্রে জার্সি নম্বর এর সংখ্যা ১২ এর উপরে হয় সাধারণত!

তবে এর একটি উজ্জ্বল ব্যতিক্রম হচ্ছে উবালদো ফিলোল যিনি ১৯৭৮ ও ১৯৮২ বিশ্বকাপে যথাক্রমে ৫ ও ৭ নং জার্সি পরে খেলেছেন।

যদি কোন কারণে গোলরক্ষককে মাঠের বাইরে যেতে হয়, তা লাল কার্ডের জন্য বা আহত যেভাবেই হোক না কেন, তাহলে আরেকজন গোলরক্ষককে মাঠে নামতে হয়। যদি কোন বদলী গোলরক্ষক না থাকে অথবা কোন দল পরিবর্তিত খেলোয়াড় নামানোর সব সুযোগ গ্রহণ করে ফেলে, তবে সে দলের কাউকে গোলরক্ষক হতে হয়।

গোলরক্ষক এর ক্ষেত্রে যে ৫ টি বিষয় আবশ্যিক এবং গুরুত্বপূর্ণ :

  • সাহসী : গোলকিপিং ফুটবলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ।অতএব গোলকিপারকে অবশ্যই সাহসী হতে হবে।এবং যেকোনো পরিস্থিতিতে ঘাবড়ানো চলবে না।
  • ডিসিসান মেকিং : দ্রুত সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়াটা একজন দক্ষ গোলকিপারের মূল অস্ত্র।

ডাইভিং : ডাইভিং গোলকিপারের সবচেয়ে শক্তিশালী স্কিল। গোলকিপারকে অবশ্যই ডাইভিং এ পারদর্শী ও এক্রোব্যাটিক হতে হবে।

কানেকশন উইথ ডিফেন্ডার : একজন নিখুত গোলকিপার হতে হলে অবশ্যই সতীর্থ ডিফেন্ডারের সাথে অনুকূল রসায়ন বজায় রাখতে হবে। গোলকিপারের সিদ্ধান্ত যাতে ডিফেন্ডাররা দ্রুত বুঝতে পারে এবং ডিফেন্ডারের প্রতিটা সিদ্ধান্ত যাতে গোলকিপার সহজে ধরতে পারে সেই বিষয়ে লক্ষ রাখতে হবে।

পজিটিভ থিংকিং : ম্যাচের যেকোনো পরিস্থিতিতে গোলরক্ষককে পজিটিভ থাকতে হবে এবং হার না মানা মানসিকতা বজায় রেখে লড়তে হবে। গোলরক্ষক সম্পর্কে কিছু ইন্টারেস্টিং

ফ্যাক্ট

  • স্টোক সিটির বেগোভিচ গোলরক্ষক হওয়া সত্ত্বেও মাত্র ১২ সেকেন্ডে ইতিহাসের দ্রুততম গোল করেন
  • সবচেয়ে দীর্ঘতম ক্লিনসিট ব্রাজিলের মাতোস ফিলহোর। তিনি ১৮১৭ মিনিট পর্যন্ত কোনো গোল খাননি
  • গোলকিপাররা অন্য রঙের কিট পরে মাঠে নামে বিপক্ষ দলের ফরোয়ার্ডদের বিভ্রান্ত করার জন্য
  • গোলরক্ষকদের মধ্যে সর্বোচ গোলদাতা ব্রাজিলের কেনি। তার গোলসংখ্যা ১২৯
  • সবচেয়ে বেশি পেনাল্টি সেভ ইংল্যান্ডের পল কুপারের।তার পেছনে রয়েছে ভ্যালেন্সিয়ার ডিয়েগো আলভেস।

বর্তমানে ফুটবল বিশ্বে সেরা গোলরক্ষকদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ম্যানুএল নয়ার, জিয়ানলুইজি বুফন, ডি হিয়া, টের স্টেগান, থিবো কর্তুয়া প্রমুখ।

Comments

comments