বিশ্বের অদ্ভুত কিছু খাবারের তালিকা (পর্ব ১)

অদ্ভুত খাবার

বাঙালী মানেই মাছ ভাত হলেও হয়তো এর বাহিরে স্বাভাবিক কিছু খাবার ছাড়া তেমন কিছুই কেউ কখনো চিন্তা করতে পারে না। কিন্তু এমন কিছু খাবার আছে পৃথিবী জুড়ে মানুষ খায়। নাম আর বর্ণনা শুনলে হয়তো আপনার খাওয়া বন্ধ হয়ে যাবে। চলুন জেনে নিই তেমন কিছু অদ্ভুত খাবারের কথা।

Balut

বিশ্বের অদ্ভুত কিছু খাবারের তালিকা

  1. ডাক ইমব্রেট: ডিমের মধ্যে অধ্য জন্মানো বাচ্চাকে ডিম সহ সেদ্ধ করে খাওয়াটা পূর্ব এশিয়ার মানুষদের কাছে বেশ জনপ্রিয়। তারা বিস্বাস করে এতে অনেক পুষ্টি পাওয়া যায় ও রোগ মুক্তি ঘটে।
  2. স্নেক ওয়াইন : এলকোহল এর বোতলের ভিতর জীবন্ত সাপ,বিচ্ছু,টিকটিকি,কচ্ছপ সহ কিছু প্রাণীকে কিছুদিন রেখে দিয়ে তার পর নানা রকম মসলা দিয়ে খাওয়াটা চীনে বেশ জনপ্রিয়।তারা বিস্বাস করে এতে তাদের কঠিন সব রোগ ভালো হয়ে যায়।
  3. ব্যাঙের জুস : জ্বি হ্যাঁ, ব্যাঙের জুস। থাইল্যান্ডের মানুষ জীবন্ত বাঙকে নানা রকম মসলা মিশিয়ে ব্লেন্ডারে জুস বানিয়ে খায়।ওদের বিস্বাস এতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।
  4. শীরাকো : সামুদ্রিক বিভিন্ন প্রজাতির মাছের যৌনাঙ্গ দিয়ে এ খাবার বানানো হয়। চীন রাশিয়ায় এটি খুব বিখ্যাত একটি খাবার।
  5. জীবন্ত অক্টোপাস : ছোট জীবিত অক্টোপাসকে কাঠির মাথায় বেঁধে তার পর সসে ডুবিয়ে খাওয়া হয় উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ায়।
  6. ফুগু : ফুগু এক ধরণের সামুদ্রিক মাছ।পেট বেলুনের মত ফুলে থাকে। এটি খুবই বিষাক্ত। মানুষ মারা যায় কয়েক মিনিটের মাথায় এর বিষে।কিন্তু জাপানে এটি খুব ই বিখ্যাত খাবার। তারা এর সুসি বানিয়ে খায়। এ মাছ খাবার উপযোগী করার জন্য একজন রাঁধুনিকে আট বছর প্রশিক্ষণ নিয়ে সরকারি নিবন্ধন করে, তারপর খাবার বানানোর অনুমতি দেয়া হয়।
  7. কুকুরের মাংস : শুনতেই ঘেন্না লাগে। আমাদের আধুরে প্রভুভক্ত প্রাণীর মাংস কিন্তু চীন, ভিয়েতনাম, কুরিয়ায় খুবই জনপ্রিয়। এমনকি বছরের নিদৃষ্ট সময় কুকুর মেরে তার মাংস খাবার প্রতিযোগিতা হয় চীনে।
  8. পাখির বাসার সুপ : ছোট কিছু পাখি আছে, যারা পাহাড়ের গুহায় তাদের লালা দিয়ে বাসা বানায়। সুইডেনবাসী এই পাখির লালা দিয়ে বানানো বাসা দিয়ে সুপ বানিয়ে খায়। এটি খুবই দামি খাবার। এক বাটি সুপের দাম হাজার পাউন্ডের উপরও হতে পারে।
  9. পঁচা সার্ডিন মাছ : সুইজারল্যান্ডের মানুষ সমুদ্র থেকে সার্ডিন মাছ ধরে তা টিনের বাক্সে ভরে দশ বছরের উপর সংরক্ষণ করে থাকে। মাছগুলো এই সময় পঁচে গিয়ে প্রচুর দুর্গন্ধ ছড়ায়। সুইসবাসী এটি পরে খালি মুখে খায়। এটির স্বাদ এতই খারাপ আর দূর্গন্ধ যুক্ত যে এটিকে দুনিয়ার সবচেয়ে খারাপ খাবার হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়ে থাকে।
  10. টারান্টুলা মাকড়সা”:পৃথিবীর সবচেয়ে বিষাক্ত আর বড় মাকড়সার নাম টারান্টুলা মাকড়শা। এটি এতই বিষাক্ত যে মানুষ মারতে সক্ষম। কিন্তু আমাজনের বাসিন্দাদের জন্য এটি নিয়মিত একটি খাবার। এরা এ বিষাক্ত প্রাণীটিকে তেলে ভেজে কিংবা আগুনে ঝলসিয়ে খায়।
  11. সেঞ্চুরি এগ : ডিমের সাথে ছাই, চুন, লবন মিশিয়ে রেখে দেয়া হয় কয়েক বছর কিংবা কয়েকশ বছর। তারপর সেদ্ধ করে খাওয়া হয়।
  12. কফি লুয়াক ‍: কাঁচা কফি বীজকে ছাগল, উট, হাতি, ভালুক সহ নানা প্রাণী দ্বারা খাওয়ানো হয়। এরা বীজের উপরের অংশ হজম করতে পারলেও শক্ত বীজ তথা কফির মূল বীজ হজম করতে পারে না। অত‍ঃপর এটি তাদের মলের সাথে বেরিয়ে আসে। পরে এটি সেখান থেকে সংগ্রহ করে তার পর প্রক্রিয়াজাত করা হয়। বলা হয় এটি সবচেয়ে গুণগত মান সম্পন্ন কফি। এটির দাম ও আকাশ ছোঁয়া। এক পাউন্ড কফির দাম দশ হাজার ডলার পর্যন্ত হয়ে থাকে।

Comments

comments